• সেপ্টেম্বর ২১, ২০২১
  • Last Update সেপ্টেম্বর ১৮, ২০২১ ৬:৫৮ অপরাহ্ণ
  • বাংলাদেশ

শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান খোলার ব্যাপারে মন্ত্রণালয়ের চিঠি

শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান খোলার ব্যাপারে মন্ত্রণালয়ের চিঠি

শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের ছুটি আগামী ১২ জুন পর্যন্ত বাড়িয়ে ১৩ জুন থেকে খোলার জন্য প্রস্তুতির নির্দেশ দিয়েছে শিক্ষা মন্ত্রণালয়। বৃহস্পতিবার (২৭ মে) মন্ত্রণালয়ের মাধ্যমিক ও উচ্চ শিক্ষা বিভাগ সংশ্লিষ্টদের এই নির্দেশনা দিয়ে চিঠি দিয়েছে। ‘সব ধরনের শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান আগের ধারাবাহিকতায় আগামী ১২ জুন পর্যন্ত বন্ধ বর্ধিতকরণ এবং ১৩ জুন থেকে খোলা রাখা প্রসঙ্গে’ শীর্ষক চিঠিতে চিঠিতে বলা হয়, করোনাভাইরাস সংক্রমণ পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে থাকা সাপেক্ষে আগামী ১৩ জুন থেকে এ বিভাগের আওতাধীন মাধ্যমিক ও উচ্চ মাধ্যমিক পর্যায়ের শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান খোলা এবং শিক্ষা কার্যক্রম পরিচালনার প্রয়োজনীয় প্রস্তুতিমূলক ব্যবস্থা নেওয়ার জন্য অনুরোধ করা হলো। একইসঙ্গে করোনাভাইরাসের সংক্রমণ থেকে শিক্ষার্থীদের সুরক্ষার লক্ষ্যে আগের বন্ধের ধারাবাহিকতায় আগামী ১২ জুন পর্যন্ত এ বিভাগের আওতাধীন সব ধরনের শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান বন্ধ থাকবে বলে চিঠিতে বলা হয়েছে।

চিঠিতে আরও বলা হয়, এই সময়ে নিজেদের ও অন্যদের করোনাভাইরাসের সংক্রমণ থেকে সুরক্ষার লক্ষ্যে শিক্ষার্থীরা নিজ নিজ বাসস্থানে স্থান করবেন এবং টেলিভিশন ও অনলাইন শিক্ষা কার্যক্রমের সঙ্গে সংযুক্ত থাকবেন। শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে বন্ধকালীন শিক্ষার্থীদের বাসস্থানে অবস্থানের বিষয়টি অভিভাবকরা নিশ্চিত করবেন এবং স্থানীয় প্রশাসন তা নিবিড়ভাবে পরিবীক্ষণ করবেন। গত বছরের ৮ মার্চ দেশে প্রথম করোনা আক্রান্ত রোগী শনাক্ত হওয়ার পর থেকে ধীরে ধীরে আক্রান্ত বাড়তে থাকে। প্রথম মৃত্যু হয় ১৮ মার্চ। তার আগের দিন ১৭ মার্চ সব শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান বন্ধ ঘোষণা করা হয়। এরপর দফায় দফায় এই ছুটি বাড়ানো হয়। সর্বশেষ গত ২৩ মে থেকে স্কুল ও কলেজে এবং ২৪ মে থেকে বিশ্ববিদ্যালয় খোলার ঘোষণা দেওয়া হলেও করোনার বাস্তবতায় ছুটি কয়েক দফা বাড়ানোর ঘোষণা দেয় সরকার।

সর্বশেষ গেল ২৬ মে দুপুরে করোনার কারণে শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের চলমান ছুটি ও শিক্ষা সংক্রান্ত বিভিন্ন বিষয়ে ভার্চুয়াল সংবাদ সম্মেলনে শিক্ষামন্ত্রী দীপু মনি বলেছেন, করোনা পরিস্থিতি যদি খুব বেশি খারাপ না হয়, তাহলে আগামী ১৩ জুন থেকে স্কুল-কলেজ খোলা হবে। শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের ছুটি আগামী ১২ জুন পর্যন্ত বৃদ্ধি করা হয়েছে। এরপর মাধ্যমিক ও উচ্চমাধ্যমিক পর্যায়ের সব শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান খুলে দেওয়া হবে। আমাদের সব প্রস্তুতি নেওয়া হয়েছে। আমরা শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান খুলে ক্লাস নিতে পারব।

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *