• নভেম্বর ২৮, ২০২০
  • Last Update নভেম্বর ২৮, ২০২০ ৮:০৩ অপরাহ্ণ
  • বাংলাদেশ

বিশ্বের সাথে তাল মিলিয়ে ফ্রিল্যান্সিং এ এগিয়ে বরিশালের জয়

বিশ্বের সাথে তাল মিলিয়ে ফ্রিল্যান্সিং এ এগিয়ে বরিশালের জয়

১. আপনার সংক্ষিপ্ত পরিচয়?

উত্তর: আমি মোঃ বাবলু সিকদার জয়। লেখাপড়া করেছি ঢাকা ড্যাফোডিল ইন্টারন্যাশনাল ইউনিভার্সিটি থেকে কম্পিউটার বিজ্ঞান ও প্রকৌশল বিভাগে। বর্তমানে ফ্রিল্যান্স ওয়েব ও সফটওয়্যার ডেভেলপার হিসেবে কাজ করছি আপওয়ার্ক প্লাটফর্মে। এছাড়া ফ্রিল্যান্সার.কম এ অল্প কিছু কাজ করেছি। সাথে একটি সুনামধন্য অর্গানাইজেশন এ সফটওয়্যার ইঞ্জিনিয়ার হিসেবে কর্মরত আছি। তবে ব্যস্ততার জন্য ফ্রিলেন্সিং মার্কেটপ্লেসগুলোতে নিয়মিত কাজ করা হয় না। শুধু আপওয়ার্কেই কাজ করা হয়।

২. ফ্রিল্যান্সিং-এর শুরুর গল্প টা যদি বলতেন ?

উত্তর: আমার ইন্টারমেডিয়েট কমপ্লিট করার পর একটি প্রতিষ্ঠানে কম্পিউটার ডিপার্টমেন্ট এ সহায়ক হিসেবে চাকুরি করি এবং সেই চাকুরির সুবাধে আমার ইন্টারনেট এর মাধ্যমে সকল বিষয় জানার প্রতি একটা আগ্রহ  তৈরি হয়। ঠিক তখন নিজে নিজে অনেক কিছু আবিস্কার করতে থাকি আর ঠিক সেই সময় চোখে পড়লো আউটসোর্সিং বা ফ্রিল্যান্সিং এর আর্টিকেল। তখন থেকেই প্ল্যান করি লেখাপড়া এবং চাকুরির শুরুর পাশাপাশি ফ্রিল্যান্সার হবো। তাই যখনই সময় পেতাম শুরু করে দিতাম ফ্রিল্যান্সিং সংক্রান্ত কাজ এবং সেই সাথে পছন্দমত সময়ে কাজ করার স্বাধীনতা আমাকে ফ্রিল্যান্সার হওয়ার প্রতি অনুপ্রাণিত করে।

৩. সর্ব প্রথম কি ধরনের কাজ দিয়ে ফ্রিল্যান্সিং শুরু করে ছিলেন ?

উত্তর: আমি সর্ব প্রথম ভিজিটিং কার্ড ডিজাইন দিয়ে শুরু করে ছিলাম।

৪. এখন আপনি কি ধরনের কাজ করেন?

উত্তর: বর্তমানে আমি সফটওয়্যার প্রোগ্রাম এবং ওয়েব ডিজাইন বা ডেভলপমেন্ট কাজটা বেশি করি। তবে সেই সাথে বিভিন্ন গ্রাফিক্স ডিজাইনের কাজ ও করে থাকি।

৫. ফ্লিল্যান্সিং-এর প্রথম কাজ আর আপনার অনুভূতি যদি বলতেন।

উত্তর: আমি প্রথম কাজটা তখনই পাই যখন আমাকে দিয়ে আর হবে না মনে করে ফ্রিল্যান্সিংয়ের আশা প্রায় ছেড়েই দিয়েছিলাম। প্রথম কাজটা পাওয়ার পর মনে হলো জীবনের লক্ষ্য পুরণ হতে চলেছে। স্বপ্নটাকে বাস্তব মনে হলো।

৬. ফ্রিল্যান্সিং পেশাটাকে আপনি কিভাবে দেখেন?

উত্তর: ফ্রিল্যান্সিং অনেক রিস্কি এবং চ্যালেঞ্জিং একটা কাজ। তবে এই কাজের মধ্যে একটা নেশা আছে। এই নেশা যাকে একবার পায় তার ফ্রিল্যান্সার হওয়া কেউ ঠ্যাকাতে পারে না।

৭. ফ্রিল্যান্সিং এর পাশাপাশি যা করছি।

উত্তর: চাকুরি এবং ব্যবসা দুটি’ই। মার্স ডিজাইন এন্ড টেকনোলোজি প্রতিষ্ঠানের ফাউন্ডার ও সি.ই.ও হিসেবে কর্মরত আছি।

৮. আপনার প্রিয় সখ কি?

উত্তর: ট্রাভেলিং বা দেশ-বিদেশ ভ্রমণ আমার সব থেকে বেশি ভালো লাগে, এবং সময় পেলে এই সুযোগটা কাজে লাগানোর চেষ্টা করি।

৯. ফ্রিল্যান্সিং করতে গিয়ে অনেকে নানান সমস্যায় পড়ে, এর থেকে সমাধান কি করে পেতে পারে? আপনার নিজের অভিজ্ঞতা থেকে বলুন।

উত্তর: মার্কেটপ্লেস রিলেটেড কোনো প্রবলেমে পড়লে তাদের কাস্টমার সাপোর্টে কথা বলুন। আর স্কিল রিলেটেড বা অন্য কোনো প্রবলেমে পড়লে গুগল/ইউটিউবে সার্চ করুন।

১০. আপনি ফ্রিল্যান্সিং এর ব্যাপারে আপনার Experience থেকে এখন সফলতা, আপনি কিভাবে করেছিলেন ? এবং প্রধান KEY বিষয় গুলো আমাদের বলতেন যদি।

উত্তর: লেগে থাকলে সাফল্য আসবেই। মন থেকে কোনো কিছু চাইলে তা অবশ্যই পাওয়া যায় তবে চাওয়ার মতো করে চাইতে হবে, সমস্ত সত্ত্বা দিয়ে চাইতে হবে। আপনার জীবনের লক্ষ্য কী? আপনি যদি মনে করেন আপনার লক্ষ্য পূরণ না হওয়া পর্যন্ত আপনি লেগে থাকবেন তাহলে আপনি দ্রুতই লক্ষ্যে পৌছে যেতে পারবেন।

১১. কোন ব্লগ বা সাইট আপনি বেশি অনুসরন করেন?

উত্তর: গুগল ও ইউটিউব ।

১২. একজন Freelancer এর Portfolio Build-Up করার ব্যাপারে কিছু বলুন?

উত্তর: পোর্টফোলিও সবার জন্যই দরকার। তবে নতুনদের জন্য বেশি দরকার। নতুনরা কাজ পারে/পারবে কি না এটা পোর্টফোলিও দেখেই ক্লায়েন্ট প্রথম ধারনা করে। ক্লায়েন্টকে ইমপ্রেস করার জন্য এটা হলো প্রথম ধাপ, তবে ইনকামে চিন্তা না করে নিজের পোর্টফোলিও অনেক সুন্দর করে তৈরি করার উপর অনেক বেশি মনযোগী হতে হবে। যখন পোর্টফোলিও  ভাল হবে দেখবে কাজ আপনা-আপনিই আপনার কাছে আসছে ।

১৩. আপনার কাজ করতে করতে যখন বিরক্ত আসে তখন কি করেন?

উত্তর: ইউটিউবে অনেক পুরনো দিনের গান শুনি।

১৪. আপনার প্রতিদিনের কাজের রুটিন ?

উত্তর: সকালে ঘুম থেকে উঠে তৈরি হয়ে অফিসের উদ্দেশ্য বের হই তারপর অফিস শেষ করে নিজের বিজনেস নিয়ে বসি।

১৫. পরিবারকে কখন সময় দেন ?

উত্তরঃ সরকারি ছুটির দিনে তা ছাড়া পরিবারের রিকুয়ারমেন্ট অনুযায়ী চেষ্টা করি সময় দেওয়ার।

১৬. নতুনদের উদ্দেশ্যে কিছু বলুন?

উত্তর: নতুনদের উদ্দেশ্যে বলছি- আপনি যদি একজন সৎ মানুষ না হন তাহলে এই সেক্টরে কখনো ভালো করতে পারবেন না এবং টিকেও থাকতে পারবেন না।  সুতরাং সততার সাথে কাজ করতে হবে।

স্বাক্ষাতকার গ্রহণে:

মোঃ আরিফুর রহমান

সম্পাদক

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *