• অক্টোবর ২৪, ২০১৯
  • Last Update অক্টোবর ২৩, ২০১৯ ১০:৫৮ অপরাহ্ণ
  • বাংলাদেশ

বরিশালের দুটি বাস টার্মিনালে যাত্রীদের চরম দুর্ভোগ

বরিশালের দুটি বাস টার্মিনালে যাত্রীদের চরম দুর্ভোগ

বরিশালের দুটি বাস টার্মিনালে যাত্রীদের চরম দুর্ভোগ * হাঁটু সমান পানি *খানাখন্দে ভরপুর
নিজস্ব প্রতিবেদক, বরিশাল ॥ দক্ষিণ ও পশ্চিমাঞ্চলের যাত্রীদের জন্য নগরীর দুই প্রবেশদ্বারের দুটি বাস টার্মিনালে প্রতিনিয়ত যাত্রীদের চরম দুর্ভোগ পোহাতে হচ্ছে। সিটি কর্পোরেশনের অধীনস্থ তিন একর জায়গা বিশিষ্ট একেকটি টার্মিনালে বছরের সব সময়ই হাঁটু সমান পানি কিংবা কর্দমাযুক্ত থাকে। সারাদেশের সাথে সড়ক যোগাযোগের এ টার্মিনালগুলোতে যাত্রীদের জন্য নেই কোন সুযোগ সুবিধা। আসন্ন ঈদ-উল আযহা উপলক্ষে যাত্রী চাঁপ বিবেচনায়ও কোনো পদক্ষেপ নেই টার্মিনালগুলোতে।
জেলা প্রশাসক এসএম অজিয়র রহমান যাত্রী সেবা বিবেচনায় মালিক সমিতির কল্যান ফান্ড থেকে ঈদ-উল আযহায় যাতায়াতকারী যাত্রীদের সেবা দেয়ার জন্য সংশ্লিষ্ট বাস মালিক সমিতির নেতৃবৃন্দদের নির্দেশ দিয়েছেন। সিটি কর্পোরেশনের তত্ত্বাবধায়ক প্রকৌশলী মোঃ আনিসুজ্জামান জানান, গত ঈদ-উল ফিতরের আগে রূপাতলী বাস টার্মিনালের যাত্রী দুর্ভোগ লাঘবে বিসিসি মেয়র সেরনিয়াবাত সাদিক আব্দুল্লাহ ব্যক্তিগতভাবে সংস্কার করিয়ে দিয়েছেন।
সরেজমিনে রূপাতলী বাস টার্মিনালে গিয়ে দেখা গেছে, দক্ষিণ ও পশ্চিমাঞ্চলের ১৯টি রুটের ১০টি মালিক সমিতির অধীনে এক হাজারের বেশি বাস ও মিনিবাস চলাচল করছে। এ বিপুল সংখ্যক বাসে স্বাভাবিক সময়েই প্রায় দুই লাখেরও বেশি মানুষ প্রতিদিন যাতায়াত করলেও নেই কোন টয়লেটের ব্যবস্থা। পাবলিক টয়লেটের নামে বিসিসি থেকে ইজারা নেয়া রূপাতলী বাস টার্মিনালের উত্তর-পশ্চিম পার্শ্বে হাঁটুসমান পানি পেরিয়ে অস্বাস্থ্যকর পরিবেশের পাবলিক টয়লেট। বাধ্য হয়ে কেউ কেউ গিয়ে বমি করতে করতে বের হলেও সিটি কর্পোরেশন কিংবা মালিক সমিতির নজর নেই সেদিকে। টার্মিনালের সর্বত্র নোংরা ও অস্বাস্থ্যকর পরিবেশ বিরাজ করলেও তা দেখার কেউ নেই।
এ টার্মিনাল দিয়ে নিয়মিত যাতায়াতকারী যাত্রীরা জানান, কাউন্টারে টিকেট কেটে দীর্ঘক্ষণ বৃদ্ধ, নারী, শিশুদের দাঁড়িয়ে থাকা ছাড়া বসার কোন উপায় নেই এ টার্মিনালে। এখানে কিছুক্ষণ দাঁড়িয়ে থাকার পর বাসের হেলপারসহ বখাটের নানান অশ্লীল ভাষ্য শুনতে হয় অসহায় যাত্রীদের। এনিয়ে প্রতিবাদ করলে সেখান থেকে মারধরের শিকার ছাড়া কেউ বেরোতে পারেনা।
নগরীর অপর প্রবেশদ্বার নথুল্লাবাদ কেন্দ্রীয় বাস টার্মিনালে হাঁটু সমান পানি না থাকলেও পরিবেশ অস্বাস্থ্যকর ও নোংরা। সারাদেশের সাথে সড়ক পথে যোগাযোগের এ টার্মিনালে ২৪ ঘন্টাই যাত্রী পরিবহন করলেও নেই কোনো বিশ্রামাগার। টার্মিনালের নিজস্ব কোনো টয়লেট না থাকলেও সিটি কর্পোরেশনের ইজারাকৃত একটি পাবলিক টয়লেট ও প্রভাবশালী মহলের ছত্র-ছায়ায় গড়ে ওঠা বাকি দুটি পাবলিক টয়লেটও যাত্রী বান্ধব নয়।
এ রুটে যাতায়াতকারী যাত্রীরা জানান, ঢাকা, চট্টগ্রাম, বেনাপোল, যশোর, সিলেট, কক্সবাজার, রাজশাহী, খুলনাসহ দেশের সর্বত্র যাতায়াতের ব্যবস্থা আছে। কিন্তু যাত্রার শুরুতে তাদের নানান ভোগান্তির শিকার হতে হয় এ টার্মিনালে। সর্বত্র নোংরা পরিবেশসহ রাতে যাত্রীদের আতংক নিয়ে টার্মিনালে অবস্থান করতে হয়। বখাটেদের উৎপাতসহ অপরাধীরা প্রকাশ্যে ঘোরা ফেরা করলেও কারোর নজর নেই। যাত্রীরা জানান, দিনে দিনে এসব রুটে ভাড়া বৃদ্ধি পেলেও তাদের দুর্ভোগ কমছে না। বিশ্রামাগার না থাকায় সকল যাত্রীদের ঘন্টার পর ঘন্টা টার্মিনালে দাঁড়িয়ে থাকতে হয়।

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *