• নভেম্বর ২০, ২০১৯
  • Last Update নভেম্বর ১৯, ২০১৯ ৮:১০ অপরাহ্ণ
  • বাংলাদেশ

বরিশাল কৃষি ইনস্টিটিউটের নিখোঁজ ছাত্রের সন্ধান মিলেছে

বরিশাল কৃষি ইনস্টিটিউটের নিখোঁজ ছাত্রের সন্ধান মিলেছে

স্টাফ রিপোর্টার, বরিশাল ॥ বরিশালের বাবুগঞ্জ উপজেলার কৃষি প্রশিক্ষণ ইনস্টিটিউটের ছাত্রাবাসা থেকে আইন শৃঙ্খলা বাহিনী পরিচয়ে তুলে নেয়া ছাত্র মাহাথির মোহাম্মদ বিন ফরিদ (১৭) এর সন্ধান মিলেছে। সে বরগুনা জেলা ডিবি’র হেফাজতে ছিলো বলে জানিয়েছে বরিশাল মহানগরীর এয়ারপোর্ট থানার অফিসার ইন-চার্জ (ওসি) মো. মাহাবুব আলম। মঙ্গলবার (০৯ জুলাই) মাহাথিরকে তার বাবার জিম্মায় দেয়া হয় বলেও জানান তিনি।
তবে সন্তানকে ফিরে পাওয়ার বিষয়টি নিশ্চিত করলেও কিভাবে কোথা থেকে ফিরে পেয়েছেন সে বিষয়টি জানাতে অপরাগতা প্রকাশ করেছে মাহাথির বাবা বরগুনা কৃষি অফিসের ড্রাইভার মো. ফরিদ উদ্দিন। মাহাথির গৌরনদী উপজেলার আশোকাঠি এলাকার বাসিন্দা এবং বাবুগঞ্জস্থ বরিশাল কৃষি প্রশিক্ষণ ইনস্টিটিউট (এটিআই) এর দ্বিতীয় সেমিস্টারের ছাত্র। আজ বুধবার এটিআইতে শুরু হওয়া পরীক্ষায় অংশগ্রহন করেছে বলে তার বাবা জানিয়েছেন।

তিনি বলেন, গত ১লা জুলাই গভির রাতে আইন শৃঙ্খলা বাহিনী পরিচয়ে ৭/৮ জন লোক ছাত্রাবাসের ২০৬ নম্বর কক্ষ থেকে মাহাথিরকে বরগুনায় বন্দুকযুদ্ধে নিহত নয়ন বন্ডের ০০৭ গ্রুপের সদস্য দাবী করে ধরে নিয়ে যায়। এই ঘটনার পর থেকেই নিখোঁজ ছিলো মাহাথির। বিষয়টি নিয়ে ইনস্টিটিউটের অধ্যক্ষ মো. ইদ্রিস ও মাহাথির বাবা বাদী হয়ে বরিশাল মেট্রোপলিটন এয়ারপোর্ট থানায় পৃথক দুটি সাধারণ ডায়েরী করেন। এই ঘটনার ৯ দিন পরে মঙ্গলবার মাহাথিরকে খুঁজে পায় তার পরিবার।

মাহাথির বাবা ফরিদ উদ্দিন বলেন, আমি আমার ছেলেকে ফেরত পেয়েছি এটাই বড় বিষয়। এজন্য আমি দুপুরে থানায় করা ডায়েরী তুলে নিয়েছি। তবে কোথা থেকে কিভাবে পেয়েছি সে বিষয়ে সাংবাদিকদের জানার প্রয়োজন নেই বলে মন্তব্য করে তিনি বলেন, আমার ছেলেকে ধরে নেয়া হয়েছিলো। সাংবাদিকরা বিষয়টি দেশবাসির কাছে তুলে ধরেছে। এজন্য আমি তাদের কাছে কৃতজ্ঞ।

এদিকে বরিশাল মেট্রোপলিটন এয়ারপোর্ট থানার অফিসার ইন-চার্জ (ওসি) মাহবুব আলম বলেন, যতটুকু জানতে পেরেছি মাহাথির বরগুনা জেলা ডিবি’র কাছে ছিলো। রিফাত হত্যার পরিকল্পনার সাথে জড়িত থাকা সন্দেহে তাজে জিজ্ঞাসবাদের জন্য নেয়া হয়। পরে মাহাথিরকে তার বাবার জিম্মায় দেয়া হয়েছে বলে জানিয়েছেন ওসি।

অবশ্য বরগুনা জেলা ডিবি’র পরিদর্শক হারুন অর রশিদ বলেন, মাহাথির আমাদের কাছে ছিলো না। আর থাকলেও সেটা আমার জানা নেই। উর্ধ্বতন কোন কর্মকর্তা মাহাথিরকে এনে থাকলে সেটা আমি বলতে পারব না। তবে এয়ারপোর্ট থানা পুলিশ বলে থাকলে তারাই বলতে পারবে যে মাহাথির কার কাছে ছিলো

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *