• জুন ২৮, ২০২২
  • Last Update জুন ২৪, ২০২২ ১১:৫৫ পূর্বাহ্ণ
  • বাংলাদেশ

বরিশালের উজিরপুরে লম্পটের একী কান্ড, ছাত্রকে বলাৎকার, ঘটনা ধামাচাপা দিতে ১ লক্ষ টাকা চাঁদা দাবী করে।

বরিশালের উজিরপুরে লম্পটের একী কান্ড, ছাত্রকে বলাৎকার, ঘটনা ধামাচাপা দিতে ১ লক্ষ টাকা চাঁদা দাবী করে।

বরিশালের উজিরপুরে লম্পটের একী কান্ড! রাতের আধারে এক ছাত্রকে ফোন করে ডেকে নিয়ে মোটা অংকের টাকার প্রলোভন দেখিয়ে বলাৎকার করেছে। নেক্কার ঘটনায় এলাকাবাসী ক্ষুব্ধ। এ নিয়ে এলাকায় তোলপাড় সৃষ্টি হয়েছে। ঘটনা ধামাচাঁপা দিতে কতিপয় খোটবাঁজ চাঁদাবাজরা মোবাইল ফোন ছিনিয়ে নেয় এবং ১ লক্ষ টাকা চাঁদা দাবী করেছে বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে। স্থানীয় সূত্রে জানা যায় উপজেলার বামরাইল ইউনিয়নের হস্তিশুন্ড গ্রামের লতিফ বেপারীর ছেলে লম্পট কাওছার বেপারী(৩০) পার্শ্ববর্তী খোলনা গ্রামের হারুন হাওলাদারের ছেলে কলেজ ছাত্র(১৭) কে ৬ এপ্রিল রাত ১০ টায় ফোন করে হস্তিশুন্ড গ্রামের মাদ্রাসা সংলগ্ন একটি নির্জন বাগানে নিয়ে মোটা অংকের টাকার প্রলোভন দেখিয়ে বলাৎকার করেছে।

এ সময় ওই গ্রামের সেকান্দার কারিকরের ছেলে বখাটে সুজন কারিকর(৩০) এবং মনু মিঞার ছেলে মিলে কূ-কৃর্তির ঘটনা মোবাইল ফোনে ভিডিও ধারন করে ও তাদেরকে মারধর করে লম্পটের কাছ থেকে একটি বিদেশী দামীয় মোবাইল ফোন ছিনিয়ে নিয়ে যায় এবং অশ্লিলতা ভিডিওকৃত বিভিন্ন মোবাইল ফোনে ছড়িয়ে দেয়ার হুমকী দিয়ে আরো ১ লক্ষ টাকা চাঁদা দাবী করে। সুচতুর লম্পট কাওছার তাদের প্রস্তাবে রাজী হয়ে যায়। পরের দিন টাকা দেয়ার কথা বলে কোন রকম ছাড় পেয়ে যায়। ৭ মার্চ সকাল ১০টায় কাওছার বেপারী কয়েকজন সন্ত্রাসী নিয়ে দেশীয় ধারালো অস্ত্র রামদা, ছুরি, চাপাতি নিয়ে সুজন ও মাইনুলকে খুজতে থাকে এমনকী এ নিয়ে দফায় দফায় ধাওয়া পাল্টা ধাওয়ার ঘটনাও সংঘটিত হয়েছে। পরে স্থানীয়দের হস্তক্ষেপে কিছুটা শান্ত হয় পরিবেশ।

এরপর মুল কৃর্তির ঘটনা ছড়িয়ে পড়ে এলাকায়। বখাটে সুজন ও মাইনুল খোটবাজ, চাঁদাবাজ নামে এলাকায় সুপরিচিত। এ ছাড়াও তাদের বিরুদ্ধে মাদক, জুয়াসহ একাধিক অভিযোগ করেছে স্থানীয়রা। ছাত্রকে বাড়ীতে পাওয়া যায়নি সে মুখ লজ্জায় মোবাইল ফোনটি বন্ধ রাখে তাই যোগাযোগ করা সম্ভব হয়নী। লম্পট কাওছার জানান আমরা দুজনে কথা বলতে ছিলাম তখন সুযোগ নিয়ে চাঁদাবাজ আমাদের পরিহিত কাপর চোপর খুলে ফেলে মিথ্যা অপপ্রচার চালিয়ে মারধর করে মোবাইল ফোন ছিনিয়ে নিয়ে যায় এবং আমার কাছে ১ লক্ষ টাকা চাঁদা দাবী করে সুজন ও মাইনুল। এদিকে সুজন কারিকর জানান তারের বলাৎকারের সকল চিত্র তার মোবাইল ফোনে ভিডিও রয়েছে। কোন মিথ্যার আশ্রয় নিতে পারবেনা বা ঘটনা ধামাচাঁপা দিতে পারবেনা কাওছার বেপারী। বলাৎকারের মত নাক্কার জনক ঘটনার সাথে জড়িত ওই লম্পট ও চাঁদাবাজ উভয়কে গ্রেফতার পূর্বক দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবী জনিয়ে প্রশাসনের উর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষের সু-দৃষ্টি কামনা করেন এলাকাবাসী।

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published.