• ডিসেম্বর ৫, ২০২২
  • Last Update নভেম্বর ২৫, ২০২২ ৬:৫৪ অপরাহ্ণ
  • বাংলাদেশ

বরিশালে মা ইলিশ হুমকির মুখে

বরিশালে মা ইলিশ হুমকির মুখে

*নদীতে ডুবন্ত জাল ফেলে পাড়ে বসে থাকে জেলেরা

স্টাফ রিপোর্টার, বরিশাল:  ইলিশের প্রজনন মৌসুমে মা ইলিশ রক্ষায় প্রশাসনের পক্ষ থেকে ব্যাপক তৎপরতা শুরু হলেও নতুন কৌশলে ডিমওয়ালা ইলিশ শিকারে মেতে উঠেছেন অধিক মুনাফালোভী কতিপয় অসাধু জেলেরা। তারা প্রশাসনের চোখকে ফাঁকি দিতে কৌশলে ইলিশ শিকারের জন্য নদীতে ফেলে রাখা অবৈধ কারেন্ট জাল ডুবন্ত অবস্থায় ফেলে নদীর পাড়ে জালের রশি রেখে মা ইলিশ শিকার করছেন। ফলে ইলিশ প্রজনন মৌসুম হুমকির মুখে পরেছে।

নদীর পাড়ের একাধিক বাসিন্দাদের সাথে আলাপকালে জানা গেছে, গত বছরের চেয়ে এবছর জেলেরা ভিন্নকৌশল নিয়ে ডিমওয়ালা ইলিশ শিকার করছে। গত বছর প্রশাসন দেখলেই জেলেরা আর নদীতে জাল নিয়ে নামতেন না। কিন্তু এবছর জেলেরা কৌশল পরিবর্তন করে এককজন জেলে একাধিক জাল নিয়ে ডিমওয়ালা ইলিশ শিকারে নদীতে নেমেছে। প্রশাসন নদী থেকে জাল জব্দ করে নিয়ে আসলেও পরবর্তীতে আবার নতুন জাল নিয়ে ইলিশ শিকার করা হচ্ছে।

সরেজমিনে জেলার হিজলা, মুলাদী, বাবুগঞ্জ, উজিরপুর ও গৌরনদী উপজেলার মধ্যদিয়ে প্রবাহিত মেঘনা, জয়ন্তী, সন্ধ্যা ও আড়িয়াল খাঁ নদী এলাকা ঘুরে দেখা গেছে, ডিমওয়ালা ইলিশ শিকারের মহোৎসব। একদিকে প্রশাসন টহল দিচ্ছে অপরদিকে আবার নদীতে জাল নিয়ে নেমে পরছে জেলেরা। স্থানীয় জেলেদের সাথে আলাপকালে জানা গেছে, প্রকৃত জেলেরা সরকারের নির্দেশনা মতো ইলিশ শিকার বন্ধ রাখলেও বসে নেই অধিক মুনাফালোভী কতিপয় জেলেরা। তারা মা ইলিশ শিকার অব্যাহত রেখেছে।

জেলার মুলাদী ও গৌরনদী উপজেলা মৎস্য অফিস সূত্রে জানা গেছে, গত ৯ অক্টোবর থেকে ইলিশের প্রজনন নিশ্চিত করার জন্য উপজেলা প্রশাসন নদীতে টহল অব্যাহত রেখেছেন। ইতোমধ্যে কয়েক হাজার মিটার অবৈধ কারেন্ট জাল জব্দ করে পুড়িয়ে ফেলা হয়েছে। জেলেরা নদীতে জাল রেখে পালিয়ে যাওয়ায় তাদেরকে ধরা যাচ্ছেনা। তবে ইলিশ প্রজনন মৌসুম সফল করার জন্য আগামী ৩০ অক্টোবর পর্যন্ত তাদের সর্বাত্মক চেষ্টা অব্যাহত থাকবে বলেও মৎস্য কর্মকর্তারা উল্লেখ করেন।

এ ব্যাপারে আড়িয়াল খাঁ নদীতে অভিযান পরিচালনাকারী গৌরনদী উপজেলা নির্বাহী অফিসার ইসরাত জাহান বলেন, প্রশাসনের টহলের ট্রলার দেখলেই নদীতে জাল ডুবিয়ে দ্রæত নৌকা নিয়ে ছোট খালের মধ্যে ঢুকে পরে জেলেরা। এ অবস্থায় ট্রলারের লোহার হাতলের সাথে রশি লাগিয়ে নদীতে ডুবন্ত অবস্থায় পেতে রাখা দুই হাজার মিটার অবৈধ কারেন্ট জাল উদ্ধার করে তা অগ্নিসংযোগ করা হয়েছে। তিনি আরও বলেন, মা ইলিশ নিধন বন্ধে স্ব-স্ব এলাকার জনপ্রতিনিধিরা স্থানীয় জেলেদের কাউন্সিলিংয়ের মাধ্যমে একটু সচেতন করে তুললেই ইলিশ প্রজনন মৌসুম আরও সফল হবে।

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *